Топ-100
Back

ⓘ আন্তর্জাতিক আইন



                                               

সিমা সমর

সিমা সমর হলেন একজন আফগান নারী ও মানবাধিকার আইনজীবী, সক্রিয়কর্মী এবং জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ফোরামের সমাজকর্মী। তিনি ২০০১ থেকে ২০০৩ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত আফগানিস্তানের নারী বিষয়ক মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি বর্তমানে আফগান স্বাধীনতা মানবাধিকার কমিশনের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন এবং ২০০৫ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত সুদানের মানবাধিকার পরিস্থিতি সম্পর্কে জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিবেদক ছিলেন। ২০১১ সালে তিনি নতুন প্রতিষ্ঠিত সত্য ও ন্যায়বিচার পার্টির অংশ ছিলেন। ২০১২ সালে, "বিশ্বের সবচেয়ে জটিল ও বিপজ্জনক অঞ্চলে, মানবাধিকার, বিশেষত নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় তাঁর দীর্ঘকালীন এবং সাহসী আত্মোৎস ...

                                               

ফার্খুন্দা জাহরা নাদেরি

ফার্খুন্দা জাহরা নাদেরি হলেন একজন আফগান রাজনীতিবিদ। তিনি রাষ্ট্রপতি আশরাফ গনির জাতিসংঘ বিষয়ক জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা। ২০১৬ সালে রাষ্ট্রপতির সমন জারির মাধ্যমে তাকে এই পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। তিনি এর আগে ২০১০ সালের আফগান সংসদীয় নির্বাচনের নির্বাচিত হয়েছিলেন ও ২০১০ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত আফগানিস্তান জাতীয় পরিষদের সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনিই একমাত্র নারী প্রতিনিধি যিনি ২০১০ ও ২০১২ সালে প্যারিসে টানা তিনটি শ্যান্টিলি সম্মেলনে অংশ নিয়েছিলেন। ২০১২ সালের জুলাইতে, নাদেরিকে এন-শান্তি জাতিসংঘ উন্নয়ন প্রোগ্রাম পুরস্কার প্রদান করা হয়।

                                               

মরিয়ম দুরানি

মরিয়ম দুরানি হলেন একজন আফগান সক্রিয়কর্মী এবং নারী অধিকার বিষয়ক আইনজীবী। ২০১২ সালে তিনি আন্তর্জাতিক সাহসী নারী পুরস্কার পেয়েছিলেন।

                                               

নিগহাত দাদ

নিগহাত দাদ হলেন একজন পাকিস্তানি আইনজীবী এবং ইন্টারনেট কর্মী। তিনি ডিজিটাল রাইটস ফাউন্ডেশন নামে একটি অলাভজনক সংস্থা পরিচালনা করেন। তথ্যপ্রযুক্তি সুরক্ষার ক্ষেত্রে তার কাজের জন্য অনেকগুলো জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পুরষ্কার অর্জন করেছেন।

                                               

মেহেদী হাসান রয়েল

মেহেদী হাসান রয়েল হলেন একজন বাংলাদেশী পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড়। তিনি বর্তমানে বাংলাদেশের পেশাদার ফুটবল লীগের শীর্ষ স্তর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের ক্লাব মুক্তিযোদ্ধা সংসদ এবং বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে একজন আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলেন। তিনি মূলত একজন কেন্দ্রীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেললেও মাঝেমধ্যে ডান পার্শ্বীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলে থাকেন। বাংলাদেশী ফুটবল ক্লাব দিপালীর যুব পর্যায়ের হয়ে খেলার মাধ্যমে রয়েল ফুটবল জগতে প্রবেশ করেছেন এবং পরবর্তীকালে বিজেএমসি এবং বাড্ডার যুব দলের হয়ে খেলার মাধ্যমে তিনি ফুটবল খেলায় বিকশিত হয়েছেন। ২০১৭–১৮ মৌসুমে, বাংলাদেশী ক্লাব বি ...

                                               

জামিয়া মারকাজ

জামিয়া মারকাজ ভারতের কেরলের কালিকটে অবস্থিত একটি জাতীয় ইসলামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এছাড়াও এটি মারকাজু সাকাফতী সুন্নীয়া অথবা সুন্নি মারকাজ নামেও পরিচিত কোজিকোড শহর থেকে ১৪ কিলোমিটার ৮.৭০ মা পূর্বে প্রতিষ্ঠানটি অবস্থিত। ই. কে. আবুবকর মুসলিয়ার এবং কন্নিয়াথ আহমেদ মুসুলিয়র উপস্থিতিতে এটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন সৌদি ইসলামী চিন্তাবিদ মুহাম্মদ আলাভী আল মালিকি। দুবাইয়েরমারকাজ, দুবাই যাকে দুবাই মারকাজও বলা হয় ইসলামিক বিষয়াদি ও দাতব্য কার্যক্রম বিভাগের তত্ত্বাবধানে দুবাইয়ে মারকাজ একটি শাখা শুরু করে। যেখানে ইসলামিক বিভিন্ন বিষয়ে পাঠ দান করা হয়।

                                               

টেড বুন্ডি

থিওডোর রবার্ট বুন্ডি - ২৪ শে জানুয়ারী, ১৯৮৯) একজন আমেরিকান ধারাবাহিক খুনি। তিনি ১৯৭০ এর দশকে এবং সম্ভবত এর আগেও বহু যুবতী মেয়েদের অপহরণ, ধর্ষণ ও হত্যা করেছিলেন। এক দশকেরও বেশি সময় অস্বীকারের পর, তিনি ৩০ টি হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছেন। ১৯৭৪ থেকে ১৯৭৮ সালের মধ্যে আমেরিকার সাতটি রাজ্যে তিনি এই হত্যাকান্ড চালান। হত্যার শিকার হওয়া হতভাগ্যের প্রকৃত সংখ্যা কত তা জানা যায়নি তবে তদন্তকারীরা মনে করেন খুনের প্রকৃত সংখ্যা আসলে আরো বেশি। প্রথম দর্শনে বুন্ডিকে সুদর্শন এবং অনন্যসাধারণ প্রতিভাবান হিসাবে বিবেচনা করা হত। এই সুযোগটি তিনি হত্যার শিকার হওয়া মেয়েগুলো এবং সমাজের বিশ্বাস অর্জনের জন্য ব ...

                                               

জাতিসংঘ মানব পরিবেশ সম্মেলন

জাতিসংঘের মানব পরিবেশ সম্মেলন ১৯৭২ সালের ৫–১৬ জুন সুইডেনের স্টকহোমে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ ১৯৭২ সালে স্টকহোমে সম্মেলন আহ্বান করার সিদ্ধান্ত নেয়। সুইডেন সরকারের পক্ষ থেকে এটির আয়োজনের প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়েছিল। তৎকালীন জাতিসংঘের মহাসচিব ইউ থান্ট কানাডিয়ান কুটনীতিক মরিস স্ট্রং-কে সম্মেলনের সেক্রেটারি-জেনারেল হিসাবে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানান। তিনি পিয়েরে ট্রুডোর অধীনে প্রকল্পটিতে ইতিমধ্যে দুবছর ধরে কাজ করেছিলেন। এই সম্মেলনের ফলাফল হিসাবে জাতিসংঘের পরিবেশ প্রোগ্রাম তৈরি করা হয়েছিল।

                                               

বৈশ্বিক ন্যায়বিচার আন্দোলন

বৈশ্বিক ন্যায়বিচার আন্দোলন হলো, বৈশ্বিক ন্যায়বিচার এবং সম্পদের ন্যায়সঙ্গত বণ্টনের দাবিতে পরিচালিত "অর্থনৈতিক বিশ্বায়ন" বিরোধী বিশ্বায়িত-সামাজিক আন্দোলনসমূহের একটি নেটওয়ার্ক।

                                               

অখিলেশ যাদব

অখিলেশ যাদব একজন ভারতীয় রাজনীতিবিদ এবং সমাজবাদী পার্টির সভাপতি যিনি ২০১২ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত উত্তর প্রদেশের ২১ তম মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। ১৫ মার্চ ২০১২তে ৩৮ বছর বয়সে দায়িত্ব গ্রহণের পরে, তিনি কনিষ্ঠতম ব্যক্তি হিসাবে এই পদে অধিষ্ঠিত হন। যাদব ২০১৯ সালে ১৭ তম লোকসভায় আজমগড়ের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। রাজনীতিতে তাঁর প্রথম উল্লেখযোগ্য সাফল্য ২০০০ সালে কান্নুজ আসনের লোকসভার সদস্য নির্বাচিত হওয়া । তিনি প্রবীণ রাজনীতিবিদ মুলায়ম সিং যাদবের পুত্র, যিনি ছিলেন সমাজবাদী পার্টির প্রতিষ্ঠাতা-পৃষ্ঠপোষক, তিনিভারত সরকারে প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন এবং উত্তরপ্রদেশের তিনব ...

                                               

পূর্ব জেরুসালেম

পূর্ব জেরুসালেম মধ্যপ্রাচ্যের জেরুসালেম নগরীর পূর্বভাগের একটি অংশ যা ১৯৪৮ সালের আরব-ইসরায়েলি যুদ্ধের সময় জর্দান দ্বারা অধিকৃত ছিল। এর বিপরীতে নগরীর পশ্চিমভাগ, যার অপর নাম পশ্চিম জেরুসালেম, ইসরায়েলের অধিকারে ছিল। ১৯৬৭ সালের আরব-ইসরায়েলি যুদ্ধেপর থেকে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় পূর্ব জেরুসালেমকে ইসরায়েলি অধিকৃত ভূখণ্ড হিসেবে বিবেচনা করে আসছে। পূর্ব জেরুসালেম এলাকাটিতে জেরুসালেমের পুরাতন শহর এবং ইহুদি ধর্ম, খ্রিস্টধর্ম ও ইসলাম ধর্মের সবচেয়ে পবিত্র কয়েকটি স্থান অবস্থিত, যাদের মধ্যে রয়েছে হারাম আল শরিফ, পশ্চিম প্রাচীর, আল-আকসা মসজিদ, শিলার গম্বুজ ইংরেজিতে "ডোম অভ দ্য রক" এবং যিশুর পূণ্যসমাধ ...

                                               

জাতিসংঘ মানব পরিবেশ সম্মেলনের ঘোষণাপত্র

জাতিসংঘ মানব পরিবেশ সম্মেলনের ঘোষণাপত্র বা স্টকহোম ঘোষণাপত্র ১৯৭২ সালের ১৬ই জুন জাতিসংঘের মানব পরিবেশ সম্মেলনের একবিংশতম পূর্ণাঙ্গ বৈঠকে আন্তর্জাতিক পরিবেশগত আইনের প্রথম দলিল যা একটি স্বাস্থ্যকর পরিবেশকে মানবাধিকার হিসাবে স্বীকৃতি দিয়ে গৃহীত হয়েছিল। ঘোষণাপত্রে, জাতিরাষ্ট্রসমূহ তাদের কর্মের ফলে সৃষ্ট যে কোনও পরিবেশগত প্রভাবের জন্য স্ব-স্ব দায় স্বীকার করতে সম্মত হয়েছিল।

                                               

স্বাস্থ্যের অধিকার

স্বাস্থ্য এর সার্বজনীন মানদণ্ডে ন্যূনতম অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অধিকার কে স্বাস্থ্যের অধিকার হিসেবে বিবেচনা করা হয়, যা সকল ব্যক্তির জন্য সমভাবে প্রযোজ্য। স্বাস্থ্য অধিকারের ধারণা গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক চুক্তিগুলোতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এসকল চুক্তির মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলঃ মানবাধিকারের সার্বজনীন ঘোষণাপত্র, অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অধিকারের আন্তর্জাতিক সনদ, অক্ষম ব্যক্তিদের অধিকার সনদ । স্বাস্থ্যের সংজ্ঞা, স্বাস্থ্য অধিকারের মধ্যে ন্যূনতম যেসব বিষয় অন্তর্ভুক্ত থাকবে সে সংক্রান্ত স্পষ্ট দিকনির্দেশনার অনুপস্থিতি, সকলের জন্য স্বাস্থ্য অধিকার নিশ্চিত করার জন্য কোন কর্তৃপক্ষ দ ...

                                               

জলবায়ু আন্দোলন

জলবায়ু আন্দোলন হল জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কিত বিষয়ে সক্রিয়ভাবে যুক্ত বেসরকারী সংস্থাগুলির সম্মিলিত একটি উদ্যোগ। এটি অপেক্ষাকৃত বিস্তৃত পরিবেশগত আন্দোলনের একটি শাখা, তবে কেউ কেউ এটিকে একটি নতুন সামাজিক আন্দোলন হিসাবে বিবেচনা করে, কারণ এর ব্যাপ্তি, শক্তি এবং কার্যকলাপ ছিল স্বতন্ত্র। একবিংশ শতাব্দীর প্রথম দশকে জলবায়ু আন্দোলন দ্রুত বিকাশ লাভ করে, পরিবেশ আন্দোলনের অন্যতম কারণ হিসাবে এটি শুরু হয়। ১৯৯০-এর দশকে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক কাজ শুরু হয়েছিল, যখন প্রধান পরিবেশ বিষয়ক সংস্থাগুলি, মূলত ইউএনএফসিসিসি কাঠামোয় জলবায়ু সম্পর্কে আলোচনায় জড়িয়েছিলো। ২০০০ এর দিকে বেশ কয়েকটি সুনির্দিষ্ট জলব ...

                                               

নৌ স্থাপত্য

নৌ স্থাপত্য বা নৌ প্রকৌশল হল এমন একটি প্রকৌশল যেখানে যান্ত্রিক, বৈদ্যুতিক, ইলেকট্রনিক, সফটওয়্যার এবং সুরক্ষা প্রকৌশল উপাদানগুলিকে শৃঙ্খলাবদ্ধ করা হয় এবং প্রকৌশল নকশা প্রক্রিয়া, জাহাজ নির্মাণ, রক্ষণাবেক্ষণ, এবং সামুদ্রিক জাহাজ এবং কাঠামো পরিচালনার ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হয়। নেভাল আর্কিটেকচারে সামুদ্রিক যানের আয়ুর সমস্ত পর্যায়ে মৌলিক এবং ফলিত গবেষণা, নকশা, উন্নয়ন, নকশা মূল্যায়ন এবং গণনা জড়িত। জাহাজের প্রাথমিক নকশা, বিশদ নকশা, নির্মাণ, পরিক্ষণ, নির্বাহন এবং রক্ষণাবেক্ষণ, লঞ্চিং এবং ড্রাই ডকিং হল এর প্রধান ক্রিয়াকলাপ। জাহাজগুলি সংশোধন করার জন্য শিপ ডিজাইনের গণনাগুলিও প্রয়োজনীয়। নেভাল ...

                                               

জাহাজ মডেল বেসিন

একটি শিপ মডেল বেসিন একটি বাস্তব বেসিন বা ট্যাঙ্ক যা জাহাজের মডেলগুলির সাথে জলশক্তিবিদ্যার পরীক্ষা চালাতে ব্যবহৃত হয়, একটি নতুন জাহাজ নকশার উদ্দেশ্যে, বা সমুদ্রে জাহাজের কার্যকারিতা উন্নত করার জন্য জাহাজের নকশাকে পরিমার্জন করার উদ্দেশ্যে ব্যবহৃত হয়। এটি এমন সংস্থা নির্দেশ করে যা এই জাতীয় সুবিধার মালিকানা নেয় এবং পরিচালনা করে। একটি শিপ মডেল বেসিন প্রতিষ্ঠান একটি ইঞ্জিনিয়ারিং ব্যবসালয় যা সম্পৃক্ত জাহাজ নির্মাণের স্থানের ঠিকাদার হিসাবে কাজ করে এবং জাহাজ ও সমুদ্রতীরাক্রান্ত কাঠামোর নকশা এবং অগ্রগতির সহায়তা করার জন্য জলশক্তিবিদ্যার মডেল পরীক্ষা এবং সংখ্যাসূচক হিসাব সরবরাহ করে।

আন্তর্জাতিক আইন
                                     

ⓘ আন্তর্জাতিক আইন

সাধারণত আন্তর্জাতিক আইন বলতে বিভিন্ন রাষ্ট্রের সমন্বয়ে সৃষ্ট আইন, যা এক রাষ্ট্র বা জাতির সাথে অন্য রাষ্ট্র বা জাতির সম্পর্ক নির্ধারণ করে। আন্তর্জাতিক আইন কোন একক রাষ্ট্রের সৃষ্টি নয়। এ আইন বিভিন্ন রাষ্ট্রের ঐকমত্য ও অংশগ্রহণের মাধ্যমে সৃষ্টি হয় এবং তা প্রত্যেক রাষ্ট্রের নিজস্ব স্বার্থ, সার্বভৌমত্ব রক্ষা ও অন্য রাষ্ট্রের সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখার জন্য সৃষ্ট। প্রত্যেক রাষ্ট্র আন্তর্জাতিক আইন শ্রদ্ধার সাথে মেনে চলতে দায়বদ্ধ। প্রধানত দুই বা ততোধিক রাষ্ট্রের স্বার্থে সৃষ্ট সন্ধিচুক্তির মাধ্যমে এ আইনের সৃষ্টি। চুক্তিবদ্ধ রাষ্ট্রগুলো এ আইন মেনে চলতে বাধ্য। তবে অনেকক্ষেত্রে এর ব্যতিক্রমও দেখা যায়। রাষ্ট্রীয় আইন থেকে আন্তর্জাতিক আইন চারিত্রিক দিক থেকে পৃথক; এ আইন জনগণের জন্য নয়, রাষ্ট্রের জন্য ঘোষিত। আন্তর্জাতিক আইন নিশ্চিত করার জন্য বেশ কয়েকটি সংস্থা গঠিত হয়েছে এবং কয়েকটি ঘোষণা ও কনভেনশন ঘোষিত হয়েছে।

                                     

1. আন্তর্জাতিক আইনের উৎস

আন্তর্জাতিক আইনের উৎস দুই রকম: বস্তুগত ও অবস্তুগত। একটি নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া ও পদ্ধতিতে সার্বভৌম রাষ্ট্রের সাধারণ সম্মতি সৃষ্টি হয়। এ সাধারণ সম্মতি আন্তর্জাতিক আইনের মূল ভিত্তি। রাষ্ট্রসমূহের এ সাধারণ সম্মতি আন্তর্জাতিক আইনকে বৈধতা দান করে। সুতরাং আন্তর্জাতিক আইন পালনের মূলসূত্র হিসেবে সাধারণ সম্মতিকে ধরে নিয়ে "জনগণের ইচ্ছা" যা রাষ্ট্রসমূহের সমন্বিত ইচ্ছা দ্বরা প্রতিফলিত হচ্ছে, তাকে আন্তর্জাতিক আইনের আনুষ্ঠানিক উৎস বলা হয়। আবার যেসব বিষয় বা বস্তু আন্তর্জাতিক আইনের উপস্থিতির সাক্ষ্য দেয় অর্থাৎ যে প্রকৃত উৎস থেকে আইন তার শক্তি আহরণ করে, তাকে বস্তুগত উৎস বলে। আন্তর্জাতিক চুক্তি, প্রথা, আন্তর্জাতিক আদালতের সিদ্ধান্ত বা জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের গৃহীত প্রস্তাবাবলী বস্তুগত উৎসের অন্তর্গত। আন্তর্জাতিক আইন মূলত প্রথাভিত্তিক আইনের একটি অন্যতম উৎস হিসেবে স্বীকৃত। প্রথাই আন্তর্জাতিক আইনের প্রাথমিক উৎস এবং অনেকাংশে প্রথাসমূহই ক্রমান্বয়ে চুক্তিতে রূপান্তরিত হয়েছে। সাম্প্রতিককালে আন্তর্জাতিক আইনের উৎস হিসেবে ন্যায়পরায়ণতাকে বিবেচনায় আনা হয়।

আন্তর্জাতিক আইনের উৎস নির্ণয়ে আন্তর্জাতিক আদালতের সংবিধি ৩৮ ১ ধারা যথেষ্ট গুরুত্ব বহন করে। এ ধারা অনুযায়ী বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য আদালত যে আইন প্রয়োগ করবে তা হল:

  • বিভিন্ন বিধি-বিধান সৃষ্টিকারী আন্তর্জাতিক কনভেনশন বা চুক্তি যা বিরোধপক্ষসমূহ কর্তৃক স্বীকৃত;
  • বিভিন্ন দেশের খ্যাতিমান পণ্ডিত ব্যক্তিদের মতবাদ যা আইনের বিধান নির্ণয়ে সহায়ক ভূমিকা পালনে সক্ষম।
  • বিচার বিভাগীয় সিদ্ধান্ত; এবং
  • আন্তর্জাতিক প্রথা যা আইন হিসেবে সাধারণভাবে স্বীকৃত;
  • আইনের সাধারণ নীতিমালা যা সভ্য জাতিসমূহ কর্তৃক স্বীকৃত;

আন্তর্জাতিক আইন বিশেষজ্ঞদের মতে আন্তর্জাতিক আদালতের সংবিধি ধারা ৩৮-এর প্রথম অনুচ্ছেদে যে সমস্ত উৎসের কথা বলা হয়েছে সেগুলো মৌলিক এবং গুরুত্বের অণুক্রমিক অনুসারে সাজানো হয়েছে।

                                     

2. আন্তর্জাতিক আইনের বৈশিষ্ট্য

  • রাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক সংগঠন এর বিষয়বস্তু।
  • পূর্ণাঙ্গ রাষ্ট্রসমূহের প্রতিনিধিদের সম্মতিতে এ আইন প্রণীত হয় এবং রাষ্ট্রসমূহের সম্মতিতে তার প্রতিফলন ঘটে।
  • রাষ্ট্রীয় আইনের মত আন্তর্জাতিক আইন ভঙ্গকারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণকারী কোন সংস্থা নেই। রাষ্ট্রসমূহকে স্থায়ী ব্যবস্থায় কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে হয়। এ পদক্ষেপ রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক বা বাণিজ্যিক পদক্ষেপ হতে পারে।
  • আন্তর্জাতিক আইন বিশ্বের সকল রাষ্ট্র ও সংগঠনের সম্পর্ক নির্ণয় ও নিয়ন্ত্রণ করে।
                                     

3. আন্তর্জাতিক আইনের পরিধি

আন্তর্জাতিক আইনের পরিধি ব্যাপক ও বিস্তৃত। আকাশসীমা, জলসীমা, স্থলসীমা এমনকি তার বাইরেও আন্তর্জাতিক আইনের বিচরণ রয়েছে। বর্তমানে আন্তর্জাতিক আইনের পরিধি হল:

  • পারমাণবিক অস্ত্র বিস্তার ও রোধ।
  • আন্তর্জাতিক যোগাযোগ ও পরিবহন ব্যবস্থা।
  • আন্তর্জাতিক বিশেষায়িত সেবাসংস্থাসমূহ, চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যগত ক্ষেত্রসমূহ।
  • গোষ্ঠীগত অধিকার, নারী ও শিশু অধিকার আদিবাসী অধিকার ইত্যাদি।
  • অর্থ,বাণিজ্য, কর ও শুল্ক সম্পর্কিত আন্তর্জাতিক বিষয়াবলী।
  • মানবাধিকার বাস্তবায়ন ও মূল্যায়ন।
  • রাষ্ট্রের সাথে রাষ্ট্রের, রাষ্ট্রের সাথে আন্তর্জাতিক সংগঠন বা আন্তর্জাতিক সংগঠন ও রাষ্ট্র হতে ব্যক্তির স্বার্থসংশ্লিষ্ট ক্ষেত্র ও বিষয়ে।
  • রাষ্ট্র, আন্তর্জাতিক সংগঠন ও ব্যক্তি।
  • আন্তর্জাতিক সাংবিধানিক আইন।
  • আন্তর্জাতিক নদী ও সমুদ্র এবং তার তলদেশের সম্পদ ব্যবস্থাপনা।
  • আন্তর্জাতিক সিদ্ধান্ত অমান্যের প্রতিকার।
  • আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক অস্থিরতা ও সংকট, যুদ্ধ, দ্বন্দ্ব্ব নিরসন ও শান্তি।
  • আঞ্চলিক সংগঠনসমূহ, যেমন- সার্ক, আসিয়ান, ন্যাটো ইত্যাদি।
  • আন্তর্জাতিক বুদ্ধিবৃত্তিক সম্পদ ও জ্ঞান-বিজ্ঞান।
  • বিরোধ মীমাংসায় আন্তর্জাতিক আদালত ও সালিশী আদালত।


                                     

4. বহিঃসংযোগ

  • Department of International Law, Graduate Institute of International and Development Studies, Geneva
  • International & Foreign Law Community
  • International law overview
  • Centre for International Law CIL, Singapore
  • United Nations Rule of Law, the United Nations centralised website on the rule of law.
  • UN International Law
Free and no ads
no need to download or install

Pino - logical board game which is based on tactics and strategy. In general this is a remix of chess, checkers and corners. The game develops imagination, concentration, teaches how to solve tasks, plan their own actions and of course to think logically. It does not matter how much pieces you have, the main thing is how they are placement!

online intellectual game →