Топ-100
Back

ⓘ রেস্তোরাঁ




                                               

আন্নানগর

আন্নানগর, দক্ষিণ ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের চেন্নাই জেলার কূবম নদীর তীরে অবস্থিত একটি আবাসিক অঞ্চল৷ এটি চেন্নাই শহরের উত্তর-পশ্চিম দিকে অবস্থিত আমাইন্দকরাই তালুকের আন্না নগর জোনের লোকালয়। তামিল নেতা কাঞ্চীপুরম নটরাজন আন্নাদুরাইয়ের নাম অনুসারে এই লোকালয়টির নাম রাখা হয়। এটি চেন্নাইয়ের বহু পুরনো একটি লোকালয় বর্তমানে নতুন আগত উচ্চবিত্ত শ্রেণীর লোক এই স্থানে বসতি স্থাপন শুরু করেছে। অতিসম্প্রতি শান্তিনগরে তিরুমঙ্গলম জংশনে ভি আর চেন্নাই নামে একটি শপিং মল চালু হয়েছে। ১৯৬৮ খ্রিস্টাব্দে বিশ্ব বিপণন মেলার অংশ হিসেবে আন্না নগর টাওয়ার নির্মাণ করা হয় এই লোকালয়ের গুরুত্বপূর্ণ ল্যান্ডমার্ক। অন্যা ...

                                               

প্রিন্স অফ ওয়েলস বেকারি

প্রিন্স অফ ওয়েলস বেকারি ১৮৫০ সালে গ্রেট ব্রিটেনের ওয়েলসের একজন ব্যক্তি ঢাকায় প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। মূল মালিক ভারত বিভাজনের কিছুপূর্বে ব্রিটেনে চলে যান। বেকারিটি পুরান ঢাকার লক্ষ্মী বাজারে অবস্থিত। আসল মালিক চলে যাওয়াপর বেকারি এবং সংশ্লিষ্ট চত্বরটি একজন প্রাক্তন কর্মচারী শেখ বুদ্ধু মিয়া কিনে নিয়েছিলেন, তারপর যিনি বেকারিটি চালিয়ে যান। বেকারিতে শেখ বুদ্ধু মিয়ার পরিবারের তিন প্রজন্মের মালিকানা রয়েছে। বেকারিটি ঢাকায় প্রথম বিবাহের কেক এবং ক্রিসমাস কেক তৈরি করেছিল। বেকারিটি একশ বছরের পুরানো সরঞ্জামগুলির সাথে একটি ঐতিহ্যবাহী পদ্ধতিতে খাবার প্রস্তুত করে। এর ক্রিসমাস কেক পুরাতন ঢাকার একটি ঐত ...

রেস্তোরাঁ
                                     

ⓘ রেস্তোরাঁ

রেস্তোরাঁ খাদ্যদ্রব্য, কোমল পানীয় প্রস্তুত ও তা সংশ্লিষ্ট ভোজন রসিকদের কাছে সরবরাহকারী হিসেবে কাজ করে থাকে। এর বিনিময়ে গ্রাহকদের কাছ থেকে খাদ্যের জন্য নির্ধারিত বিনিময় মূল্য পূর্বেই কিংবা খাদ্য গ্রহণের পরবর্তী সময়ে গ্রহণ করে। সাধারণতঃ লিখিত কিংবা মৌখিক খাদ্য তালিকা প্রদর্শন ও মূল্যমানের উপর নির্ভর করে গ্রাহকদেরকে তা সরবরাহ করা হয় ও খাওয়ানো হয়। তবে অনেক রেস্তোরাঁই বিশেষ খাবার গ্রহণের জন্য গ্রাহকদের রূচিবোধকে আমন্ত্রণ জানায় ও প্রাধান্য দেয়। প্রয়োজনে রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষের সাথে গ্রাহকের দ্বি-পাক্ষিক চুক্তি সম্পাদনের মাধ্যমে নির্দিষ্ট স্থানে খাদ্য সরবরাহের জন্য প্রস্তাবনা করা হয় এবং রেস্তোরার লোকেরা তা নির্দিষ্ট সময়ে এবং নির্দিষ্ট স্থানে তা পৌঁছানো হয়

                                     

1. উৎপত্তিগত দিক

সুপ্রাচীনকালে ভ্রমণ কিংবা স্থানান্তরজনিত কারণে অতিথিশালা ও সরাইখানার উৎপত্তি হয়। ভ্রমণকারীদের খাদ্যের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যেই রেস্তোরাঁ ব্যবস্থাপনার ধারণা সৃষ্টি হয়। পাশাপাশি স্থানীয় অধিবাসীরাও এখানে খাদ্য গ্রহণ করে থাকে; যদিও তা খুবই স্বল্প আকারের।

আধুনিককালের রেস্তোরাঁগুলো পূর্ব থেকেই অতিথিদের জন্য নির্ধারিত খাদ্য-সহ তাদের চাহিদামাফিক খাদ্য প্রস্তুত ও পরিবেশন করে থাকে। অষ্টাদশ শতকে ফ্রান্সে আধুনিক রেস্তোরাঁ ধারণার উৎপত্তি হয়েছিল।

                                     

2. পরিচালনা

রেস্তোরাঁ বা ভোজনালয়ের স্বত্ত্বাধিকারীকে রেস্তোরেঁচিউর নামে ডাকা হয়। রেস্তোরাঁ ও রেস্তোরেঁচিউর - উভয় শব্দই ফরাসী রেস্তোরাঁর শব্দ থেকে এসেছে। এর অর্থ হচ্ছে পুণঃস্থাপন করা বা পুণঃসংরক্ষণ করা। পেশাজীবি পাকশি, রাধুনীকে শেফ বা বাবুর্চী নামে অভিহিত করা হয়। মূলতঃ তিনিই রেস্তোরাঁর প্রধান কেন্দ্রবিন্দু। তাকে রন্ধনকার্যে যোগ্য সহায়তা করেন একদল কর্মী ও সহকারী বাবুর্চী।

                                     

3. অর্থনৈতিক অবদান

২০০৬ সাল পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় ২,১৫,০০০ রেস্তোরাঁ ছিল যা $২৯৮ বিলিয়ন ডলার অর্থ লেনদেন করে। এছাড়াও, $২৬০ বিলিয়ন ডলার অর্থের লেনদেনে ব্যস্ত ছিল প্রায় ২,১৫,০০০ ফাস্ট ফুডের রেস্তোরাঁ।

ওহিওর ক্লিভল্যান্ডে সদ্য প্রতিষ্ঠিত রেস্তোরাঁগুলোয় এক জরীপে দেখা যায় যে, প্রতি ১ বছর অন্তর গড়পড়তা ৪ জনের মধ্যে ১ জন এবং ৩ বছর পর ১০ জনের মধ্যে ৬ জন মালিকানা ত্যাগ করে কিংবা ব্যবসা থেকে চলে যায়। লক্ষ্যণীয় যে, সবগুলো পরিবর্তনের মধ্যেই আর্থিক সঙ্কট লক্ষ্য করা যায়নি। তিন বছরের বিষয়টি বিশেষ রেস্তোরাঁগুলোতেও একই প্রভাব বিস্তার করেছিল।

                                     

4. আইন-কানুন

দেশে প্রচলিত আইন এবং প্রতিষ্ঠানের কার্যপন্থার উপর নির্ভর করে রেস্তোরাঁগুলো এ্যালকোহল জাতীয় পানীয় সরবরাহ করতে পারে কিংবা পারে না। উন্নত দেশগুলোর প্রচলিত আইনে খাদ্যবিহীন অবস্থায় মদ বিক্রয়কার্য কঠোরভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তবে,বৈধ পন্থায় মদ বিক্রয়কার্যে নিয়োজিত বারে নির্দিষ্ট নিয়ম-কানুন প্রয়োগপূর্বক এ জাতীয় পানীয় বিক্রয় করা হয়ে থাকে। কিছু প্রতিষ্ঠান অ্যালকোহল নিয়ে প্রবেশ করার কথা বলে। আবার, অনেক দেশের রেস্তোরাঁগুলোতে বিয়ার কিংবা মদ সরবরাহে নিষেধাজ্ঞা প্রদান করা আছে।